অ্যাপ্লিকেশন সফটওয়্যার এবং এর বিভাজন।

কম্পিউটার সফটওয়্যার (Computer software) বলতে বোঝায় একগুচ্ছ কম্পিউটার প্রোগ্রাম, কর্মপদ্ধতি ও ব্যবহারবিধি, যার সাহায্যে কম্পিউটারে নির্দিষ্ট প্রকারের কাজ সম্পাদন করা যায়। কম্পিউটার সফটওয়্যার প্রধানত ৩ প্রকার যথাঃ সিস্টেম সফটওয়্যার, প্রোগ্রামিং সফটওয়্যার, অ্যাপ্লিকেশন সফটওয়্যার । আজকের এই আর্টিকেলে অ্যাপ্লিকেশন সফটওয়্যার নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে।

অ্যাপ্লিকেশন সফটওয়্যার

যে সব কম্পিউটার প্রোগ্রাম কম্পিউটারের ব্যাবহারিক সমস্যা সমাধান এবং তথ্য প্রক্রিয়াকরনের কাজে ব্যাবহৃত হয় তাকে অ্যাপ্লিকেশন সফটওয়্যার (Application Software) বলে। এছাড়াও অ্যাপ্লিকেশন সফটওয়্যার মানুষকে কম্পিউটারের বিশেষ ধরনের কাজ সম্পাদনে সাহায্য করে। অ্যাপ্লিকেশন সফটওয়্যার এমন একটি সফটওয়্যার যা ব্যবহারকারীর প্রয়োজন অনুযায়ী সাহায্য করে। এছাড়াও সফটওয়্যারটি  ব্যবহারকারীকে নির্দিষ্ট কাজ সম্পাদনা করতে সাহায্য করে। অ্যাপ্লিকেশন সফটওয়্যারকে শুধু অ্যাপ্লিকেশন বা  অ্যাপ (App) বলা হয়। এজন্যই কম্পিউটার অ্যাপ্লিকেশন অন্যান্য কম্পিউটার সফটওয়্যার যেমন- অপারেটিং সিস্টেম (Operating System), সিস্টেম ইউটিলিটি (System Utility), প্রোগ্রামিং ভাষা (Programming language) ইত্যাদির থেকে ভিন্ন। অ্যাপ্লিকেশন প্রোগ্রাম ব্যবহারকারীকে সাধারণত টেক্সট, সংখ্যা এবং ছবি  নিয়ে কাজ করার সুযোগ দিয়ে থাকে।

উদাহরণস্বরুপ-

  • একাউন্টিং সফটওয়্যার (Accounting Software)
  • অফিস সফটওয়্যার (Office Software)
  • গ্রাফিক্স সফটওয়্যার (Graphics Software) এবং
  • বিভিন্ন মিডিয়া প্লেয়ার (অডিও এবং ভিডিও)

মাঝে মাঝে একের অধিক অ্যাপ্লিকেশন সফটওয়্যার প্যাকেজ বা বান্ডেল আকারে বিতরণ করা হয়। প্যাকেজগুলিকে সাধারণত অ্যাপ্লিকেশন সুইট (Application Suite) বলা হয়। উদাহরণস্বরুপঃ মাইক্রোসফট অফিস (Microsoft Office), ওপেনঅফিস.অর্গ (openoffice.org), ইত্যাদি। একটি অ্যাপ্লিকেশন সুইটের বিভিন্ন অ্যাপ্লিকেশনের ইন্টারফেস সাধারণত একই রকম হয়ে থাকে। এর ফলে সুইট ব্যবহারকারী প্রায় একই ইন্টারফেসে কাজ করার অনুভূতি পায়। এছাড়াও সুইটের প্রোগ্রামগুলির একটির তথ্য অপরটিতে  খুব সহজেই স্থানান্তর ও ব্যবহার করার ব্যবস্থা থাকে। যেমনঃ স্প্রেডশিট অ্যাপ্লিকেশনে (Spreadsheet application) প্রস্তুত করা একটি স্প্রেডশিট খুব সহজেই একই অ্যাপ্লিকেশন সুইটের ওয়ার্ড প্রসেসর অ্যাপ্লিকেশনের (Word processor application) ডকুমেন্টে এমবেডেড (Embedded) করে দেয়া সম্ভব।

অ্যাপ্লিকেশন সফটওয়্যার কম্পিউটারের প্লাটফর্ম উপযোগী করে তৈরি করা হয়। এর ফলে অ্যাপ্লিকেশন সফটওয়্যার প্লাটফর্মের সাথে খুব সহজেই কাজ করতে পারে। অ্যাপ এর অন্য একটি উদ্দেশ্য রয়েছে। অ্যাপ কম্পিউটারের প্লাটফর্মের কাজ করার ক্ষমতা ব্যবহার করে এবং ঐ প্লাটফর্মের সিস্টেম সফটওয়্যারের ক্ষমতা ব্যবহার করে একটি নির্দিষ্ট কাজ শেষ করে। আবার কিছু কিছু সফটওয়্যার রয়েছে যেগুলো বিভিন্ন প্লাটফর্মে ব্যবহার করার উপযোগী করে বানানো হয়। যেমনঃ মাইক্রোসফটের মাইক্রোসফট অফিস।

IT বা তথ্য প্রযুক্তিতে, অ্যাপ্লিকেশন সফটওয়্যার নির্দিষ্ট কাজ করার জন্য ব্যবহারকরীর চাহিদা অনুযায়ী তৈরী করা হয়। অ্যাপ্লিকেশন সফটওয়্যার বা অ্যাপস অপারেটিং সিস্টেম, ইউটিলিটি সফটওয়্যার, এবং প্রোগ্রামিং ভাষা ইত্যাদি সফটওয়্যার থেকে ভিন্ন। এটি তৈরী করা হয়েছে কম্পিউটারের নির্দিষ্ট কিছু কাজ সম্পাদনের জন্য। নির্দিষ্ট কাজের উপর ভিত্তি করে অ্যাপস লেখা (Text), সংখ্যা (Number), ছবি (Image) অথবা এই সবগুলোর সমন্বয়ে তৈরি হতে পারে। কিছু কিছু অ্যাপ্লিকেশন প্যাকেজ  রয়েছে যেগুলো কম্পিউটারের একটি নির্দিষ্ট কাজের জন্য ব্যবহৃত হতে পারে যা সবাই একই কাজের জন্য ব্যবহার করে  থাকে এবং অ্যাপ্লিকেশন প্যাকেজ শুধু একটি কাজ সম্পাদনের উপর জোর দেয় যেমনঃ ওয়ার্ড প্রসেসিং (Word Processing)| অন্য সফটওয়্যারগুলোকে ডাকা হয় ইন্টিগ্রেটেড সফটওয়্যার (Integrated Software) যেগুলো একই সঙ্গে একাধিক কাজের উপর জোর দিয়ে থাকে। ব্যবহারকারী দ্বারা তৈরী বা লিখিত সফটওয়্যার কম্পিউটার সিস্টেমে ব্যবহার করে ব্যবহারকারীর কাঙ্ক্ষিত  কাজ করা যায় এগুলো হল স্প্রেডশিট টেমপ্লেট, ওয়ার্ড প্রসেসরের ম্যাক্রো, গ্রাফিক্স অথবা এনিমেশনের স্ক্রিপ্ট ইত্যাদি। এছাড়াও ইমেইলের ফিল্টারও একধরনের ব্যবহারকারী লিখিত সফটওয়্যার (User-Written Software)|

মাঝে মাঝে বিতর্কিত প্রশ্ন চলে আসে, যেমনঃ অপারেটিং সিস্টেমে যে প্রোগ্রামগুলো অর্ন্তগত আছে সেগুলো কি আলাদা সফটওয়্যার? যেমনঃ

  • ইউনাইটেড স্টেটস বনাম মাইক্রোসফটের একটি মামলায় প্রশ্ন এসেছিল, “অপারেটিং সিস্টেমের ইন্টারনেট ইক্সপ্লোরার কি আলাদা সফটওয়্যার?”
  •  জিএনইউ/লিনাক্স নামের দ্বন্ধ।

এছাড়াও কিছু কিছু সিস্টেমে অ্যাপ্লিকেশন সফটওয়্যার এবং অপারেটিং সিস্টেম আলাদা করা কষ্টকর হয়ে পরে ব্যবহারকারীর কাছে কারণ ভিসিআর, ডিভিডি প্লেয়ার অথবা মাইক্রোওভেন চালাতেও সফটওয়্যার ব্যবহৃত হয়।

অ্যাপ্লিকেশন সফটওয়্যারের বিভাজন

IT বা তথ্য প্রযুক্তির যুগে অ্যাপ্লিকেশন সফটওয়্যার দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। অ্যাপ্লিকেশন সফটওয়্যারের ব্যপকহারে বৃদ্ধির জন্য অ্যাপ্লিকেশন সফটওয়্যারকে বিভিন্ন ভাগে ভাগ করা হয়েছে। যেমনঃ

বিভিন্ন অ্যাপ্লিকেশন সফটওয়্যার 

  • এন্টারপ্রাইজ রিসোর্স প্লানিং (Eterprise Resource Planning)
  • একাউন্টিং সফটওয়্যার (Accounting Software)
  • টাস্ক এবং সিডিউলিং (Task and Scheduling)
  • ফিল্ড সার্ভিস ম্যানেজমেন্ট (Filed Service Management)
  • ডেটা ম্যানেজমেন্ট (Data Management)
    • কন্টাক্ট ম্যানেজমেন্ট (Contact Management)
    • স্প্রেডশিট (Spreadsheet)
    • পারসোনাল ডেটাবেজ (Personal Database)
  • ডকুমেন্ট সম্পর্কিত
    • ডকুমেন্ট আসেম্বলি (Document Assembly)
    • ওয়ার্ড প্রসেসিং (Word Processing)
    • ডেস্কটপ পাবলিশিং সফটওয়্যার (Desktop Publishing Software)
    • ডায়াগ্রাম সফটওয়্যার (Diagram Software)
    • প্রেজেন্টেশন সফটওয়্যার (Presentation Software)
    • অ্যানালিটিক্যাল সফটওয়্যার (Analytical Software)
    • কম্পিউটার এলজেবরা সিস্টেম (Computer Algebra System)
    • নিউমেরিক্যাল সফটওয়্যার (Numerical Software)
    • ফিজিক্স সফটওয়্যার (Physics Software)
    • বিজ্ঞান সফটওয়্যার (Science Software)
    • পরিসংখ্যান সফটওয়্যার (Statistics Software)
    • নিউরাল নেটওয়ার্ক সফটওয়্যার (Neural Network Software)
  • সহযোগী সফটওয়্যার
    • ইমেইল (Email)
    • ব্লগ (Bolg)
  • রিজার্ভেশন সিস্টেম (Reservation system)
  • আর্থিক সফটওয়্যার (Financial software)
    • প্রতিদিনের বাণিজ্যের সফটওয়্যার (Daily Trading Software)
    • ব্যাংক সফটওয়্যার (Bank software)
    • ক্লিয়ারিং সফটওয়্যার (Clearing Software)
    • এরিথমেটিক সফটওয়্যার (Aerithmic Software)

কন্টেন্ট অ্যাকসেস সফটওয়্যার 

  • ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া সফটওয়্যার (Electronic Media Software)
    • ওয়েব ব্রাউজার (Web Browser)
    • মিডিয়া প্লেয়ার (Midea Player)
    • হাইব্রিড এডিটর প্লেয়ার (Hybrid Editor Player)

বিনোদনের সফটওয়্যার

  • ডিজিটাল প্রাণী (Digital Animals)
  • স্ক্রিন সেভার (Screen Saver)
  • ভিডিও গেমস (Video Games)
    • আর্কেড গেমস (Arcade Games)
    • কনসোল ইমুলেটর (Console Emulator)
    • পারসোনাল কম্পিউটার গেমস (Personal Computer Games)
    • কনসোল গেমস (Console Games)
    • মোবাইল গেমস (Mobile Games)

শিক্ষামূলক সফটওয়্যার

  • শ্রেণীকক্ষ ব্যবস্থাপনা (Classroom Management)
  • শিক্ষনীয়/ প্রশিক্ষন ব্যবস্থাপনা (Training Management)
  • তথ্যসূত্র (References)
  • জরিপ ব্যবস্থাপনা (Survey Management)

প্রতিষ্ঠানের সাংগঠনিক সফটওয়্যার

  • ব্যবসার কার্যপ্রবাহ (Business Flow)
  • ডেটাবেজ ব্যবস্থাপনা (Database Management)
  • ডিজিটাল সম্পদ ব্যবস্থাপনা (Digital Asset Management)
  • দলিল পত্র ব্যবস্থাপনা (Document Letter Management)
  • ভৌগোলিক তথ্য ব্যবস্থাপনা সিস্টেম (Geographic Information Management System)

কৃত্রিম অনুকরন সফটওয়্যার

  • কম্পিউটার কৃত্রিম অনুকরনকারক (Computer Artificial Imitation)
    • বৈজ্ঞানিক (Scientific)
    • সামাজিক (Social)
    • যুদ্ধক্ষেত্র (Battlefield)
    • তাৎক্ষনিক (Instantaneous)
    • গাড়ি (Cars)
      • ফ্লাইট (Flight)
      • ড্রাইভিং (Driving)
    • গেমস (Games)
      • গাড়ির গেমস (Cars Games)
      • ফুটবল গেমস (Football Games)

মিডিয়া উন্নয়ন সফটওয়্যার

  • ছবি ব্যবস্থাপক (Picture Manager)
  • মিডিয়া তৈরী অথবা সম্পাদনা (Create or Edit Media)
    • ৩য় মাত্রার গ্রাফিক্স সফটওয়্যার (3rd level Graphics Software)
    • এনিমেশন সফটওয়্যার (Animation Software)
    • গ্রাফিক আর্ট (Graphic Art)
    • ছবি এডিটিং (Photo Editing)
      • ভেক্টর ছবি এডিটিং (Vector Picture Editing)
      • রেজিস্টার ছবি এডিটিং (Register Picture Editing)
    • ভিডিও এডিটিং(Video Editing)
    • শব্দ এডিটিং (Sound Editing)
      • ডিজিটাল অডিও এডিটিং (Digital Audio Editing)
    • মিউজিক সিকোয়েন্সার (Music sequencer)
      • স্কোররাইটার (Scoreriter)
    • হাইপার মিডিয়া এডিটিং (Hyper Media Editing)
      • ওয়েব উন্নয়ন (Web Development)
    • গেম উন্নয়ন (Game Development)

পণ্য প্রকৌশলন সফটওয়্যার

  • হার্ডওয়্যার প্রকৌশলন (Hardware Engineering)
    • কম্পিউটার সহায়তা প্রকৌশলন (Computer-assisted Engineering)
    • সসীম উপাদান বিশ্লেষন (Finite Element Analysis)
  • সফটওয়্যার প্রকৌশলন (Software Engineering)
    • কম্পিউটার ভাষা সম্পাদক (Computer Language Editor)
    • কম্পিউটার সফটওয়্যার (Computer Software)
    • ইন্ট্রিগ্রেটেড উন্নয়ন পরিবেশ (Integrated Development Environment)
    • গেম তৈরী সফটওয়্যার (Game-made Software)
    • ডিবাগ গুলো (Debugs)
    • প্রোগ্রাম পরীক্ষার টুল (Program Testing Tool)
    • লাইসেন্স ব্যবস্থাপক (License Manager)

আজকের মত এ পর্যন্তই। পরবর্তীতে সিস্টেম সফটওয়্যার এবং প্রোগ্রামিং সফটওয়্যার সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য নিয়ে আবার আপনাদের মাঝে হাজির হব। ভাল থাকুন সুস্থ থাকুন এবং আমাদের সাথেই থাকুন।

আল্লাহ্‌ হাফেজ…

Share This

You May Also Like